সর্বশেষ

‘মি টু’ আন্দোলনের বিপক্ষে ১০০ ফরাসি নারীর খোলা চিঠি

জানুয়ারি ১১, ২০১৮

অনলাইন ডেস্ক: নারীর বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির প্রতিবাদের প্রতিরূপ হয়ে ওঠা ‘মি টু’ আন্দোলনের সমালোচনা করে একটি খোলা চিঠি দিয়েছেন ফ্রান্সের ১০০ জন বিখ্যাত ও গুরুত্বপূর্ণ নারী। ওই চিঠিতে স্বাক্ষরকারী নারীদের অন্যতম ফ্রান্সের চলচ্চিত্র অভিনেত্রী ক্যাথরিন ডেনেভু।  এ খবর দিয়েছে অনলাইন সিএনএন। চিঠিতে বলা হয়, মি টু হ্যাশট্যাগধারী আন্দোলনকারীরা যৌন নিপীড়নের প্রতিবাদের নামে বাড়াবাড়ি করছে। তারা অবাধ কিংবা উন্মুক্ত যৌন আকাক্সক্ষা প্রকাশের পথ বন্ধ করে দিচ্ছে। যা যৌন স্বাধীনতা বিরোধী। আরো বলা হয়, নারীকে যৌনতায় আকর্ষিত করার অধিকার পুরুষের রয়েছে।

এই আকর্ষণের প্রচেষ্টাকে অনৈতিকতা আখ্যা দিয়ে মি টু আন্দোলনকারীরা যৌন আকর্ষণ সৃষ্টির প্রয়াশ রুদ্ধ করতে পারে না। এর মাধ্যমে যৌনতার অধিকার খর্ব করা হচ্ছে। পুরুষের নারীকে উত্তেজিত করবার প্রচেষ্টার স্বাধীনতা থাকা অপরিহার্য বলেও উল্লেখ করা হয়েছে ওই চিঠিতে। বলা হয়েছে, ধর্ষণ একটি অপরাধ। তবে আকর্ষিত করে প্রণয়লীলায় যেতে চাওয়া কোন অপরাধ নয়।  অপরদিকে, ওই খোলা চিঠির প্রতিবাদ জানিয়েছেন দেশটির ৩০ জন নারীপন্থী সক্রিয়তাবাদীদের একটি দল। তারা ওই চিঠিতে স্বাক্ষরকারীদের সমালোচনা করে বলেন, যৌনতার স্বাধীনতার মানে এই না যে, আপনার সম্মতির তোয়াক্কা না করে আপনার সঙ্গে কেউ বেহায়াপনা করবার অধিকার রাখে। সব কিছুর একটা সীমা থাকে। আপনার ইচ্ছার বিরুদ্ধে কেউ যদি আপনাকে যৌন হয়রানি করে, তবে তা আর যা-ই হোক, যৌন স্বাধীনতা হতে পারে না। তারা ওই খোলা চিঠিতে স্বাক্ষরকারীদের সমালোচনা করে বলেন, নিজের ইচ্ছার বিরুদ্ধে নারীকে উত্যক্ত করা হলে তা কোনভাবেই যৌন স্বাধীনতার অধিকার বলে বিবেচিত হতে পারে না। যারা বলছেন মি টু হ্যাশট্যাগ আন্দোলন বাড়াবাড়ি, তারা সঠিক নন।

​Leave a Comment