সর্বশেষ

সাঁকোয় পারাপারের একমাত্র ভরসা

আগস্ট ১, ২০১৮

জিয়াউর রহমান মানিক, লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি:  লালমনিরহাটের সদর উপজেলার কুলাঘাট ইউনিয়নের পাকা রাস্তার সঙ্গে সংযোগ সড়কটি ভেঙে গেছে গত বছরের বন্যায়। নিজেদের উদ্যোগে ও খরচে একটি বাঁশের সাঁকো বানিয়ে চলাচল করছে ৩০০টি দরিদ্র পরিবারের মানুষ।  রাস্তাটি ধরলা শহর রক্ষা বাঁধের অংশ হওয়ায় লালমনিরহাট সদর উপজেলার কুলাঘাট ও কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার দুই হাজার পরিবারের ফসলি জমি ও ঘরবাড়ি রয়েছে বন্যা ঝুঁকিতে।
গত বছর বন্যার পানিতে পাকা রাস্তাটি ভেঙে যায়।  এতে ধরলার পানি ঢুকে আমাদের অনেকের ঘরবাড়ি ভেসে গেছে।  এরপর নিজেরা স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁশ তুলে একটি সাঁকো তৈরি করেছি।  এটি এখন ৩০০-৩৫০ পরিবারের চলাচলের একমাত্র ভরসা।
কুলাঘাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইদ্রিস আলী বলেন, ওয়াপদা বাজারের উত্তরে পাকার মাথা ভেঙে যাওয়া রাস্তাটি বরাদ্দ না পাওয়ায় মেরামত করা সম্ভব হয়নি।  স্থানীয়দের স্বেচ্ছাশ্রমে তৈরি বাঁশের সাঁকোটিতে আমিও সহযোগিতা করেছি।
লালমনিরহাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জয়শ্রী রানী রায় আগামী ডিসেম্বরে মাটি ভরাট করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।  যদি সেটা হয়, তাহলে দরিদ্র পরিবারগুলোর জন্য কিছুটা হলেও দুর্ভোগ লাঘব হবে।
আগামী ডিসেম্বরে টিআর বরাদ্দ দিয়ে ভাঙা স্থানে মাটি ভরাট করে দেবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন লালমনিরহাট সদর উপজেলার ইউএনও জয়শ্রী রানী রায়।

​Leave a Comment